Shoshi/শশী

Shoshi/শশী

ঘটনাটা বছর কয়েক আগের। ক্লোজআপ ওয়ান সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় শেখ নীলিমা শশী নামের এক প্রতিযোগীর গান শুনে মুগ্ধ বরেণ্য সঙ্গীত পরিচালক আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। প্রশংসা করলেন অকুণ্ঠ। তিনি বললেন ''আজ থেকে সব 'ক'টা জানালা' গানটি তোমার জন্য। এটা তোমাকে দিলাম। তুমি ইচ্ছা মতো গানটি গাইতে পার। এ গানটি গাওয়ার জন্য অত্যন্ত যোগ্য তুমি।


সে ঘটনা ছিল ২০০৮ সালের ক্লোজআপ প্রতিযোগিতার। এর পর দীর্ঘ সময় পার হয়ে গেছে। শশী গেয়েছেন, ভাসিয়েছেন অনেককে নিজের গানে। দুটি এককসহ অসংখ্য মিশ্র গানের অ্যালবাম বাজারে এসেছে তার। ২০০৯ সালে শশীর প্রথম একক গানের অ্যালবাম 'যেওনা' প্রকাশিত হয়। এরপর ২০১৩ সালে বের হয় 'শহর জুড়ে শশীর গান'। প্রথম অ্যালবামে যথারীতি প্রশংসা পেয়েছিলেন তিনি। আর দ্বিতীয় অ্যালবামের 'ভালবেসে তোমায়' গানটি এখনও শ্রোতাদের ঠোঁটে ঠোঁটে। কিশোরের সঙ্গে দ্বৈত কণ্ঠের এ গানটির মিউজিক ভিডিও টিও বেশ জনপ্রিয়। আর গত ভালবাসা দিবস উপলক্ষে কণ্ঠ শিল্পী আসিফ আকবরের সঙ্গে দ্বৈত অ্যালবামটি কথা বিশেষভাবে বলতে হবে। এটির নাম ছিল 'বেদনার আলপিন'। প্রায় ডজন খানেক গান দিয়ে সাজানো অ্যালবামটি প্রকাশ করেছিল আর্ব এন্টার প্রাইজ। এ গানটির বেশ কয়েকটি গান শ্রোতানন্দিত হয়। এ কণ্ঠ শিল্পীর বেড়ে ওঠা জামালপুরে। ছোট বেলায় বাড়ির চেয়ে পুকুর ঘাট ছিল তার প্রিয় জায়গা। বাবা বাড়ির বাইরে গেলেই নেমে পড়তেন পুকুরে। বাবা ফিরে না আসা পর্যন্ত সাঁতার কাটতেন । তবে মা বেশির ভাগ দিনই বাগড়া দিতেন তার এ কাজে। আর বাবা বাসায় ফিরলে শশী বোঝাতো, সে সুবোধ বালিকা। আর একটি জায়গায় শশীকে পাওয়া যেত, তা হলো আম গাছে। জ্যৈষ্ঠ মাসে তাকে পাওয়া যেত গাছের মগ ডালে এবং সেখানে বসে বসে আম খেতেন। এসব কাজের জন্য মায়ের কাছে উত্তম-মাধ্যম কিছু জুটলেও বাবা কিছু বলতেন না। শশী বললেন আরও একান্ত কিছু কথা। 'বাবাই মূলতঃ আমার গানের কারিগর। প্রতিদিন সকালে রেওয়াজে বাবা আমার জন্য অপেক্ষা করতেন। তার অনুপ্রেরণাতেই আমার গানে আসা। ২০০১ সালে তিনি তার বাবাকে হারান। কিন্তু আজও তার জন্যই গান করেন তিনি।

  • All
  • Festival/উৎসব