Kishor/কিশোর

Kishor/কিশোর

সঙ্গীত প্রতিভা অন্বেষণমূলক প্রতিযোগিতা ক্লোজআপ ওয়ান থেকে উঠে আসা শিল্পীদের মধ্যে যারা ইতোমধ্যে প্লেব্যাক, অডিও অ্যালবাম, স্টেজ প্রোগ্রাম এবং কম্পোজার হিসেবে নিজেদের যোগ্যতা মেলে ধরেছেন তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন কিশোর। কিশোর ২০০৬ সালে অনুষ্ঠিত ক্লোজআপ ওয়ান তারকা।


চট্টগ্রামে বেড়ে উঠেছেন কিশোর। গান গাওয়ার পেছনে সকল অনুপ্রেরণায় আছেন তার বাবা ও চাচা। সঙ্গীত পরিবারে বড় হয়েছেন তিনি। পরিবারের সবাই গানের সাথে জড়িত। তার চাচা, ফুফুও শিল্পী ছিলেন। তাদের কাছ থকেইে কিশোরের গান শেখা। তবে তার গানে হাতে খড়ি বাবার কাছে। সেই ছোটবেলা থেকে কিশোর তবলা ভালো বাজাতেন। পাঁচ বছর তবলা বাজানো শিখেছেন। এর পাশাপাশি গানের চর্চাও চালিয়ে গেছেন। স্কুলে পড়াকালীন এলাকায় গানের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে প্রথম হতেন তিনি। উস্তাদ মিহির লালা, উস্তাদ প্রকাশ চন্দ্র শীল- এর কাছে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতের ওপর তালিম নেন কিশোর।

সংগীতের প্রতি ভালোবাসার কারণে ঢাকার মগবাজারে নিজের মতো করে গড়ে তুলেছেন কম্পোজ স্ট্যান্ড নামের গানের স্টুডিও।

ক্লোজআপ ওয়ান প্রতিযোগিতার পর নিজের ০৩টি একক অ্যালবাম ছাড়াও ২০টি চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দিয়েছেন কিশোর। গেয়েছেন ২৩টি নাটকের টাইটেল সং। আর মিশ্র অ্যালবাম তো রয়েছেই। কিশোর ছবির সংগীত পরিচালনাও করেছেন, নাম পায়রা। এই ছবিটির সব গানের সংগীত পরিচালক তিনি। পায়রা ছবির পর এম এ জলিল অনন্ত এর নিঃস্বার্থ ভালবাসা ও সাইফ চন্দনের ছেলেটি আবোল তাবোল মেয়েটি পাগল পাগল ছবির দুটো গানের সংগীত পরিচালনাও করেছেন তিনি ।

২০০৮ সালে ভালবাসা দিবসে গাংচিল থেকে প্রকাশ হয় কিশোরের প্রথম একক অ্যালবাম ‘নিখোঁজ সংবাদ’। এ অ্যালবামের ‘টিএসসি টু চারুকলা, চন্দ্রিমা টু রমনা’ শিরোনামের গানটি শ্রোতাদের কাছে বেশ জনপ্রিয়তা পায়।

২০০৯ সালে লেজার ভিশন থেকে প্রকাশিত হয় কিশোরের দ্বিতীয় একক অ্যালবাম ‘ফিরে আস না’। অ্যালবামের বেশির ভাগ গানের কথা ও সুর করেছেন কিশোর নিজেই। তার সৃষ্টি ‘যাচ্ছো দূরে যাও তুমি বাধা দিব না’ শিরোনামের এই গানটি বেশ শ্রোতা প্রিয়তা পায়। ২০১১ সালে জি-সিরিজ থেকে প্রকাশিত হয় কিশোরের তৃতীয় একক অ্যালবাম ‘অগোছালো ভালবাসা’।

২০১৩ সালে সিডি চয়েসের ব্যানারে কিশোরের চতুর্থ একক অডিও অ্যালবাম প্রকাশিত হয় 'তুই ছাড়া'। এই প্রথম নিজের একক অ্যালবামের সব গানের সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন কিশোর নিজেই। অডিও অ্যালবাম ও প্লেব্যাকের পাশাপাশি কিশোর বেশ কিছু নাটকের টাইটেল সংগীত - এ কণ্ঠ দেন। নাটকগুলো হলো- একে শূন্যে দশ, টমটম, টুনটুনি ভিলা, স্বপ্নে বসবাস, ফোর্থ ক্লাস সোসাইটি, অহংকার ইত্যাদি। তার মিউজিক করা প্রথম নাটকের গান সকাল আহমেদের পরিচালনা এবং জাহিদ আকবরের লেখা ‘কালো ছায়া’ শিরোনামের গানটি।

২০০৮ সালে দেবাশীষ বিশ্বাসের ‘শুভ বিবাহ’ ছবিতে জীবনের প্রথম প্লেব্যাক করেন তিনি। তার কণ্ঠে গানটি ছিল ‘উড়ে উড়ে পাখি’। গানটি লিখেছেন কবির বকুল আর সুর ও সঙ্গীত করেছেন ইমন সাহা। ‘সোনালী কাবিন’ ছবিতে টাইটেল সংগীতটি কণার সাথে ডুয়েট গেয়েছেন। ইমন সাহার সঙ্গীত পরিচালনায় ‘ভালোবাসার রং’ ছবিতে কণার সাথে ডুয়েট গেয়েছেন ‘জানকি’ শিরোনামের গানটি। আলী আকরাম শুভ, আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল- এর সঙ্গীত পরিচালনায়ও গান গেয়েছেন কিশোর। এছাড়া তিনি অংশ নিচ্ছেন বিভিন্ন লাইভশো এবং স্টেজশোতে।

  • All
  • Sports/ক্রীড়া
  • Amity/মৈত্রী
  • Patriotic/দেশাত্ববোধক
  • Religious/ধর্মীয়
  • Reality/বাস্তবতা
  • Theme Song/থিম সং
  • Symbolic/রূপক
  • Brand Song/ব্র‌্যান্ড সংগীত